ভারতবর্ষ পরিচিতি - ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি দ্বিতীয় পত্র


ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি দ্বিতীয় পত্র

পাঠ-১৭ - ভারতবর্ষ পরিচিতি - ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি দ্বিতীয় পত্র
ভারতবর্ষ পরিচিতি - ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি দ্বিতীয় পত্র

ভারতবর্ষ পরিচিতি (Introduction to India)
ভারতবর্ষ নামকরণ
এশিয়া মহাদেশের মধ্যদক্ষিণে অবস্থিত ভারতবর্ষ পৃথিবীর বৃহত্তম উপমহাদেশ। বস্তুত বিশাল আয়তন, বিপুল জনসংখ্যা এবং প্রাকৃতিক বৈচিত্র্যের কারণে ভারতবর্ষকে উপমহাদেশ বলা হয়। ভারতবর্ষের নামকরণ নিয়ে ঐতিহাসিক ও গবেষকদের মধ্যে নানা মতদ্বৈধতা রয়েছে। 

একটি বর্ণনানুযায়ী প্রাচীনকালে 'ভরত' নামে এদেশে এক হিন্দু রাজা
ছিলেন। জনশ্রুতি অনুযায়ী এই রাজা ভরতের নামানুসারেই এদেশের নামকরণ হয়েছে ভারতবর্ষ। কোনাে কোনাে সূত্র
মতে, প্রাচীন ফারসি সাহিত্যে সিন্ধু শব্দটি “হিন্দ' এবং “সিন্দ’ এ উভয় নামে উল্লেখ করা হয়েছে। কালক্রমে সমগ্র
উপমহাদেশের জন্য এ ‘হিন্দ' নামটির প্রচলন হয়। অন্য একটি বর্ণনায় জানা যায়, গ্রিকরা ভারত আক্রমণ করতে এসে।

প্রথমে সিন্ধু অঞ্চলের সাথে পরিচিত হয়ে এ অঞ্চলকে ‘ইভস’ নামে অভিহিত করেন। কালক্রমে তারা সমগ্র ভারতবর্ষের
পরিচিতি হিসেবে ‘ইন্ডাস' বা “ইন্ডিয়া' নামের প্রচলন করে বলে অনেকের ধারণা। আবার সিন্ধু নদের ইংরেজি ‘ইন্ডাস’
(Indus) থেকে ‘ইন্ডিয়া’ (India) নামের উৎপত্তির কথাও কেউ কেউ বলে থাকেন। অনেকেই মনে করেন ‘হিন্দু' শব্দ
থেকেই হিন্দুস্থানের ব্যবহার। মূলত ভারতবর্ষ হিন্দুধর্মাবলম্বী প্রধান দেশ হওয়ায় মুসলমানরা একে হিন্দুস্থান নামে আখ্যা দিয়েছিল এবং এ নামটি এখনাে বহুল ব্যবহৃত হয়। 

মধ্যযুগের মুসলিম বিবরণীগুলােতে ভারতবর্ষকে হিন্দুদের বাসভূমি হিসেবে হিন্দুস্থান' নামে অভিহিত করা হয়েছে যা এখনও সুবিদিত। ধারণা করা হয় যে, হিন্দুদের বাসভূমি হওয়ায় এ অঞ্চলটি আজও হিন্দুস্থান নামে পরিচিত।

ভারতবর্ষের ভৌগােলিক অবস্থান
ভারতবর্ষ একটি বিশাল দেশ। রাশিয়াকে বাদ দিলে আয়তনে এটি সমগ্র ইউরােপ মহাদেশের সমান। 

ভারতবর্ষের উত্তর,
উত্তর-পশ্চিম ও উত্তর-পূর্ব দিকে হিমালয় পর্বত, দক্ষিণে ভারত মহাসাগর, পূর্বে ব্রহ্মদেশ (মিয়ানমার), পশ্চিমে পারস্য
(ইরান) ও আরব সাগর। বর্তমান বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, নেপাল, ভুটানের বিস্তৃত অঞ্চল এর অন্তর্ভুক্ত । পৃথিবীর
প্রায় এক-পঞ্চমাংশ লােক এ উপমহাদেশে বাস করে। ২০১৪ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী ভারতের জনসংখ্যা
১২৬,৭৪,০১,৮৪৯ জন। ভৌগােলিক দিক দিয়েও ভারতবর্ষ একটি বিচিত্র অল । ভারতবর্ষের কেন্দ্রস্থলে অবস্থিত বিন্ধ্যা পর্বত দেশটিকে দুটি অসমান অংশে বিভক্ত করেছে। 

বিন্ধ্যা পর্বতের উত্তর অংশ 'আর্যাবর্ত বা উত্তর ভারত এবং দক্ষিণাংশ দাক্ষিণাত্য' নামে পরিচিত।
ভারতবর্ষে নৃ-তাত্ত্বিক বিবর্তন
দ্রাবিড় জাতি ভারতবর্ষের প্রাচীনতম অধিবাসী। এরপর আর্য, শক, কুষাণ ও হুনগণ পর্যায়ক্রমে ভারতে আসে । অনেকের
মতে, রাজপুত, জাঠ এবং গুর্জরগণ হুন জাতির বংশধর। শুধু বহুজাতি নয়, বহুধর্ম ও ভাষাভাষী জনগণের মহামিলন
ঘটেছে ভারতবর্ষে। হিন্দু ও ইসলাম ভারতের প্রধান ধর্ম। তবে বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান, জৈন, শিখ, অগ্নি উপাসক ও অন্যান্য
ধর্মাবলম্বীও রয়েছে। ভারতে বর্তমানে ২,০০০-এর অধিক উপভাষা (Dialect) প্রচলিত আছে। এ কারণেই ভিনসেন্ট
স্মিথ (Vincent Smith) ভারত উপমহাদেশকে ‘নৃতত্ত্বের জাদুঘর’ (Ethological Museum) বলে অভিহিত করেছেন।

Close