স্মার্টফোনের মাধ্যমে অনলাইন ইনকাম ২০২২ | Online income bd-2022

ঘরে বসেই স্মার্টফোনের মাধ্যমে অনলাইন ইনকাম ২০২২ | Online income bd-2022

আশা করি সবাই ভালো আছেন। আজকে Online income bd-2022 সম্পর্কে বিস্তারিত বর্ননা এবং ব্যখ্যা সহ বিশ্লেষণ করা হবে।

২০২২ সালে এসে, যারা ঘরে বসে থেকেই অনলাইনে টাকা ইনকাম করতে চান, তাদের জন্য আজকে ১০০% কার্যকরী এবং সত্যিকারের সকল নিশ্চিত সহজ উপায় গুলো শেয়ার করা হলো। একটি Android মোবাইল ফোন দিয়েই সব কাজ করা যাবে। 

স্মার্টফোনের মাধ্যমে অনলাইন ইনকাম ২০২২

Outsourcing - আউটসোর্সিং কিভাবে শিখতে হয় | Online Income Idea in 2022

আউটসোর্সিং কি ভাবে শিখবো? এই প্রশ্নটি আমাদের দেশের একটি কমন প্রশ্ন। Outsourcing - আউটসোর্সিং হলো অনলাইন ভিত্তিক Job বা কাজ যার মাধ্যমে এক দেশে বসেই অন্যান্য দেশের কাজ করে দিয়ে খুব সহজেই অর্থ উপার্জন করা যায়। 

Outsourcing - আউটসোর্সিং কিভাবে শিখবো?

তাই আমাদের বাংলাদেশের বেশিরভাগ শিক্ষিত তরুণ প্রজন্মের মধ্যে প্রবল ইচ্ছে কাজ করে, যেনো তারা পড়াশোনার পাশাপাশি আউটসোর্সিং করে অর্থ উপার্জন করা শিখতে পারে।

আউটসোর্সিং (Outsourcing) শেখার উপায় গুলো সম্পর্কে:

যদি আপনি আউটসোর্সিং শিখতে চান, তাহলে প্রথমেই আপনাকে এই সম্পর্কে ভালো করে জেনে, বুঝে নিতে হবে। যদি আপনি মনে করে থাকেন আউটসোর্সিং শিখতে ভিবিন্ন ইন্সটিটিউট এ ভর্তি হতেই হবে! তাহলে আপনি যে ভুল ভাবছেন এতে কোন সন্দেহ নেই। 

আউটসোর্সিং শেখার জন্যে Outsourcing Institute এ ভর্তি হতে পারেন বা আপনার বন্ধুর কাছ থেকে আউটসোর্সিং সম্পর্কে বিস্তারিত শিখতে পারেন। তবে এমন নয় যে কেউ আপনাকে সরাসরি সাহায্য না করলে আপনি আউটসোর্সিং শিখতে পারবেন না। অবশ্যই নিজে নিজেই সব শিখতে পারবেন। 

আরু পড়ুন: জেনে নিন ছাত্র জীবনে টাকা আয় করার সহজ উপায় গুলো কী

এটা সব সময় বিশ্বাস করবেন যে, কোন ইন্সটিটিউট বা প্রতিষ্ঠান বা আপনার প্রিয় স্যার, এরা কখনোই এক সেকেন্ডের জন্যও আপনাকে নিয়ে সময় নষ্ট করতে চাইবে না, যদি না তারা লাভবান হয়। তবে আপনার আশেপাশে এমন কিছু ফ্রিল্যান্সার বন্ধু থাকতে পারে, যারা বিনা সার্থে আপনাকে আউটসোর্সিং সম্পর্কে বিস্তারিত সহজ জ্ঞান দিয়ে দিবে। তাই আউটসোর্সিং শিখতে চাইলে ভালো অভিজ্ঞ বন্ধুর পাশে থাকতে পারেন।

আরও অন্যান্য: আউটসোর্সিং কি ভাবে শুরু করবেন?

👉 লেখালেখি করে টাকা আয় করার ওয়েবসাইট পেমেন্ট বিকাশে

আর নিজের প্রতি আত্মবিশ্বাস থাকলে, কারু সাহায্য ছাড়াই আউটসোর্সিং সম্পর্কে বিস্তারিত শিখে নিতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে সব চেয়ে বেশি সাহায্য করবেন ইউটিউব এবং গুগল। 

আপনি শুধু সার্চ করে পড়াশোনা করে নিবেন। যারা আউটসোর্সিং শিখতে চান, তারা সহজ দুটি পথ বেছে নিতে পারেন। একটি হলো ব্লগিং এবং আরেকটি হলো ইউটিউবে ভিডিও বানিয়ে ইনকাম। 

ইউটিউবে ভিডিও বানিয়ে টাকা ইনকাম 

ইউটিউবে ভিডিও বানিয়ে টাকা ইনকাম

আউটসোর্সিং অর্থাৎ ডলার ইনকাম করে বাংলাদেশ ব্যাংকে টাকা আনতে চাইলে ইউটিউব এর মতো এতো সহজ বিকল্প আর খুজে পাবেন না৷ কারন বর্তমান সময়ে আমাদের বাংলাদেশে যদি আউটসোর্সিং করার সহজ কোন উপায় থাকে তাহলে তা হলো ভালো ইউটিউব ভিডিও বানিয়ে টাকা ইনকাম। আপনি যদি এই বিষয়ে আরও বিস্তারিত জানতে চান তাহলে গুগলে বা ইউটিউবে সার্চ করুন যে, ইউটিউব থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম করা হয়। তাহলে প্রমাণ সহ বিস্তারিত পেয়ে যাবেন। 

ফি-তে নিজের ব্লগার ওয়েবসাইটে ব্লগিং করে টাকা আয় বা আউটসোর্সিং 

ব্লগিং করে টাকা আয় বা আউটসোর্সিং

এখন শুধুমাত্র মোবাইল ফোন দিয়েই একটা ব্লগার ওয়েবসাইট বানিয়ে তারপর লিখালিখি করে টাকা ইনকাম করা যায়৷ এর জন্যে বিশেষ কোন যোগ্যতা বা সার্টিফিকেট এর প্রয়োজন হয়না৷ যারা ব্লগিং করে বা লেখা লেখি করে আউটসোর্সিং করতে চান তারা ইউটিউবে বা গুগলে সার্চ করবেন যে, "ব্লগার ওয়েবসাইট থেকে টাকা ইনকাম করার সঠিক উপায়" তাহলেই ধাপে ধাপে সব কিছু শিখে নিতে পারবেন। 

এছাড়াও যারা ব্লগিং সংক্রান্ত ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখে আউটসোর্সিং শিখতে চান তাদের জন্য নিচে একটি ইউটিউব চ্যানেল লিংক দিয়ে দেওয়া হলো। 

আমার ওয়েবসাইট এর ইনকাম প্রুফ:


ইউটিউব চ্যানেল লিংকMizan Technical


আজকের টপিকে আরও জানতে পারবেন মোবাইল ফোন দিয়ে অনলাইনে টাকা আয় সম্পর্কে ২০২২ টাকা ইনকাম বা আয় Earning করার, সব চেয়ে সহজ মাধ্যম। 

আউটসোর্সিং জব (Outsourcing job in Bangladesh)

আউটসোর্সিং

আউটসোর্সিং কি?

উত্তর: আউটসোর্সিং (Outsourcing) কাকে বলে এমন প্রশ্ন কখনো কি শুনেছেন! বা আপনার কি জানতে ইচ্ছে হয়েছে কখনো আউটসোর্সিং সম্পর্কে বিস্তারিত! নাকি আপনি ইতিমধ্যে জানেন যে, আসলে আউটসোর্সিং জব কি। 

যদি না জানেন তাহলে জেনে নিন, আউটসোর্সিং জব হলো মূলত এক দেশে বসে থেকে অন্য কোন দেশের কাজ করে দিয়ে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করা। আউটসোর্সিং job এর বেশির ভাগ কাজই অনলাইনে সম্পুর্ণ করা হয়৷ আবার যারা অনলাইনের আউটসোর্সিং এর মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করেন, তাদেরকে ফ্রিল্যান্সারও বলা হয়ে থাকে৷ 

এখন হয়তো আপনার মনে হচ্ছে যে, আউটসোর্সিং job করে টাকা ইনকাম বোধহয় খুব মজার একটা বিষয়। এমন মনে হলে, এটা সত্যি যে আপনার মন সঠিক চিন্তা করছে। এখন প্রশ্ন হলো যেহেতু আউটসোর্সিং করে টাকা ইনকাম করা যায়, তাহলে যারা নতুন তারা কি ভাবে শুরু টা করবেন? সমস্যা নেই মনযোগ দিয়ে পড়ুন....

যারা আউটসোর্সিং job করে টাকা ইনকাম করতে চান, তাদের অনেকেই মনে করে থাকেন, আউটসোর্সিং করতে হয়তো, নিজের পকেট থেকে প্রচুর টাকা খরচ করতে হয়, যেমন ভিবিন্ন ইন্সটিটিউট এ ভর্তি হয়ে কোর্স করা, কাউকে টাকা দিয়ে আউটসোর্সিং শেখার প্রত্যাশা ইত্যাদি। 

আসল কথা অর্থাৎ বাস্তব কথা হলো, অনলাইনে আউটসোর্সিং বা ফ্রিল্যান্সিং বা ব্লগিং শিখতে ইন্সটিটিউট এ ভর্তি হতে হয় না, কাউকে টাকা দিয়েও শিখতে হয়না। এখন আপনার মনে হতে পারে তাহলে শিখবো কি ভাবে। অপেক্ষা করুন, ভাই সত্যিটাই বলে দিচ্ছি...…
আউটসোর্সিং ইনকাম করা

আউটসোর্সিং জব কি ভাবে শুরু করবো?

আউটসোর্সিং job করে টাকা ইনকাম শুরু করতে প্রথমেই আপনার মধ্যে যেটা থাকতে হবে সেটা হলো প্রচুর ধৈর্যশক্তি এবং আত্মবিশ্বাস। সাথে থাকতে হবে সত্য মিথ্যা বুঝে নেওয়ার দক্ষতা, যারা সত্য মিথ্যার পার্থক্য বুঝে না, তারা অনলাইনে প্রতারণার শিকার হতে পারেন, তাই সাবধানে প্রতিটি পদক্ষেপ নিতে হবে। 

আউটসোর্সিং জব শুরু করার আগে আপনার জেনে নেওয়া জরুরি যে, কোন বিষয়ে কাজ করলে খুব সহজে সফল হওয়া যাবে এবং যা লাইফটাইম ধরে টিকে থাকবে। 

যারা নতুন এবং আউটসোর্সিং শুরু করতে চান, তাদের জন্য আমি কিছু আইডিয়া শেয়ার করছি:




উপরে দেওয়া লিংক অনুসরণ করে আপনি আউটসোর্সিং সম্পর্কে বিস্তারিত আইডিয়া নিতে পারবেন। তবে আমি এখানেই বলে দিতে চাই যে, কিভাবে শুরু টা করবেন। 
Outsourcing income bd

যারা আউটসোর্সিং job শুরু করতে চান যা যা করতে পারেন:

আউটসোর্সিং শুরু করতে চাইলে, আপনি দুটি কাজ করতে পারেন, যেহেতু আউটসোর্সিং ঘরে বসেই এবং একদম ফ্রি-তে করা যায়, তাই আপনি বেচে নিতে পারেন ব্লগারে ব্লগিং করা বা ইউটিউবে ভিডিও বানিয়ে কাজ করা।

১/ ব্লগারে ব্লগিং করতে চাইলে, আপনি ফ্রি-তে ব্লগার ওয়েবসাইট বানিয়ে টাকা ইনকাম লিখে গুগলে সার্চ করবেন, বাকি কাজ ফ্রি-তেই শিখে নিতে পারবেন। 

২/ ইউটিউবে কাজ করে আউটসোর্সিং করতে চাইলে, ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করার নিয়ম লিখে গুগলে সার্চ করলে সব ইনফরমেশন পাবেন। 

মনে রাখবেন ইউটিউবিং এবং ব্লগিং দুটি কাজই মোবাইল দিয়ে করা সম্ভব, এবং আমি নিজে ও করি। 


বিস্তারিত জানতে এবং শিখতে আমার ইউটিউব চ্যানেল থেকে ঘোরে আসতে পারেন। 

ইউটিউব চ্যানেল: BDRong24 Technical 

Mobile diye taka income | online earning 2021, 2022 in Bangladesh.  আমি প্রতি মাসে ২০০ ডলার প্লাস ইনকাম করে থাকি। ভিডিও তে পেমেন্ট প্রুফ দেখিয়ে দিয়েছি। Mobile diye taka income 2022, Mobile phone diye taka income 2022 bKash payment

আমার সর্বশেষ ১২ দিনের ইনকাম প্রুফ ভিডিও:

আমি নিজেও ব্লগিং করে টাকা ইনকাম করতে পারছি, আর ব্লগিং শিখার জন্য আমি কারু কাছে যায়নি, শুধুমাত্র ঘরে বসেই, গুগল এবং ইউটিউব থেকে Blogger এর সম্পুর্ন শিক্ষা অর্জন করতে পেরেছি। এবং এখন কিছু টাকা ইনকাম করা শুরু করতে পেরেছি।

আমার ইনকাম প্রুফ 2021 ভিডিও

আর আমি ব্লগিং এর সকল কাজ মোবাইল ফোন এর মাধ্যমে করেছি, Chrome Browser ব্যবহার করে Desktop Mode দিয়ে ল্যাপটপ বা কম্পিউটার এর কাজ গুলো করা যায়। এটা সবাই মনে রাখবেন।      
  
মোবাইলে অনলাইনে আয় ২০২০ থেকে ২০২১


আল্লাহর রহমতে আরু এগিয়ে যেতে চাই। কিন্তু এই বিষয়ে আপনারা যারা অধিক শিক্ষিত কিন্তু জব খুজে বেড়াচ্ছেন তাদের জন্য ব্লগিং শিক্ষা আরু বেশি গুরুত্বপূর্ণ। রেমিট্যান্স উপার্জন করার সহজ মাধ্যম হলো ব্লগার। যা গুগল দারা পরিচালিত। প্লেসটির ঠিকানা হলো Blogger.Com 

অনেকেই মনে করতে পারেন ব্লগিং করে সফল হওয়ার  পর টাকা কি ভাবে পাবো একমাত্র Text blogging এবং ইউটিউব থেকেই টাকা পেতে ঘর থেকে বের হওয়া লাগে না! এবং বাংলাদেশের জন্য সহজ পেমেন্ট মেথড রয়েছে। 

আমি কি ভাবে blog post লিখি ভিডিও:


কিন্তু গ্রাফিকস ডিজাইন বা অন্যান্য মার্কেট প্লেস এ জামেলা পুহাতে হয়। ব্লগিং এর টাকা আপনারা বিকাশ এ না পেলে ও  রকেট মোবাইল ব্যাংকিং এ সরাসরি টাকা পাবেন। এছাড়া বাংলাদেশের সকল ব্যাংক একাউন্ট এ টাকা আসবে সরাসরি। তাহলে আর দেরি কেনো নিচের টপিক টি পড়ে কাজ শুরু করে দিন।

ব্লগিং করে টাকা আয় করুন ঘরে বসে সারা জীবন- Make Money By Blogging


ইন্টারনেট থেকে টাকা ইনকাম   করার জন্য আমাদের কাছে নানা রকম  পন্থা বা পথ রয়েছে।যদিও আমাদের সকলের ইচ্ছা ইন্টারনেট থেকে টাকা ইনকাম করব কিন্তু আমরা সকলেই এই কাজটি সহজ  হলেও সঠিক গাইডলাইনের কারণে করতে পারিনা।

সবার প্রথমে আপনাকে লক্ষ্য স্থির   করতে হবে  যে, আপনি কোন কাজটি করতে ভালোবাসেন। আপনি যেই কাজটি করতে ভালোবাসেন সেই কাজের উপরে অনলাইনে কাজ পাওয়া যায় অথবা কাজ করা যায় এবং তা  থেকে খুব সহজেই  অনলাইনে টাকা আয় ( Make Money Online ) করা যায়। অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করার জন্য আমাদের সবার প্রথমে দরকার পড়ে ভালো একটি গাইডলাইন।

আরু আছে: 

নিজেই তৈরি করুন BDRong24 এর মতো ওয়েবসাইট | How to Make a Website in Bangla

ভালো একটি গাইলেন এর পরে  যে বিষয়টি প্রয়োজন পড়ে তা হল-  ধৈর্য এবং মনোযোগ সহকারে  কাজে লেগে থাকা । আপনার যদি সঠিক লক্ষ্যে  এবং ধৈর্য্য না থাকে  তাহলে আপনি কখনোই অনলাইনে আয় করে সফল হতে পারবেন না  অথবা এটি করে আপনি খুব বেশি দূরে এগিয়ে যেতে পারবেন না। Make Money By Blogging

মূলত আজকের টপিকে আপনাদের মধ্যে যারা খুব ভালো লেখালেখি করতে পছন্দ করেন তাদেরকে উদ্দেশ্য করে  অনলাইন থেকে টাকা আয় করার একটি পন্থা দেখানো হবে। আর এই পদ্ধতির নাম হচ্ছে কি করে লেখালেখি করে ইনকাম বা ব্লগিং করে টাকা আয় । (Make Money By Blogging)

এই ব্লগিং টপিকটি তে ব্লগিং করে কিভাবে টাকা ইনকাম  করা যায় সে সম্পর্কে এ টু জেড সম্পূর্ণ গাইডলাইন দেওয়া হবে ।তাহলে চলুন দেরি না করে জেনে নিই   ব্লগিং করে টাকা আয়  কি কি উপায়ে করা যায় সে সম্পর্কে আজকের পর্বের বিস্তারিত। তাই সম্পর্কে সম্পূর্ণ জানতে ব্লগিং পেজটি ঘুরে আসুন। ( blog google )

** আপনাদের  মধ্যে যারা বাংলা লিখতে পছন্দ করেন তারা বাংলায় ব্লগিং  করা শুরু করবেন এবং যারা  ইংরেজিতে মোটামুটি দক্ষতা রয়েছে অথবা ইংরেজি লেখালেখি করতে ভালোবাসেন তারা ইংরেজিতে  ব্লগিং বা লেখালেখি  করা শুরু করতে পারেন***

ব্লগিং করে টাকা আয় করুন

ব্লগিং করে নানা উপায় অবলম্বন করে অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করা যায়। যে যে  উপায়সমূহ অবলম্বন করে ব্লগিং থেকে টাকা আয় করা যায়  সেগুলো নিচে উল্লেখ করা হলো-

1. গুগল এডসেন্স  ইনকাম: যখন আপনি লেখালেখি করার জন্য ব্লগিং করা শুরু করবেন অথবা একটি ওয়েবসাইট তৈরি করবেন  তারমধ্যে নির্দিষ্ট পরিমাণ  আর্টিকেল পাবলিশ করার পর  আপনি গুগলের কাছে এডসেন্স (  Adsense )এর জন্য এপ্লাই করতে পারেন।

গুগল এডসেন্স

যখন আপনার  গুগল এডসেন্স ( Google Adsense ) এতবার পেয়ে যাবেন তখন থেকেই যতজন ভিজিটর আপনার ওয়েবসাইটে আসবে তার ওপর ভিত্তি করে আপনার ইনকাম  হবে। মূলত   গুগল এডসেন্স ভিজিটর এর উপর টাকা দেয় না টাকাটা দেয় হলো কোন   দেশ থেকে আপনার ওয়েবসাইটে ভিজিটর আসছে এবং কতগুলো ক্লিক পড়ছে তার উপর ভিত্তি করে।

বর্তমানে আমাদের বাংলাদেশের অনেক মানুষ শুধুমাত্র একটি ওয়েবসাইটে বাংলা কনটেন্ট পাবলিশ করে মাসে কমপক্ষে 10 থেকে 2 লাখ টাকা পর্যন্ত ইনকাম করছে। যদিও এটি অবাক করার মত কিন্তু শুধুমাত্র গুগল এডসেন্স ( Google Adsense ) ব্যবহার করে এরকম ইনকাম করা সম্ভব এছাড়াও আরও অনেক পদ্ধতিতো  রয়েছেই।

আরো পড়ুন:  অ্যাডসেন্স পাওয়ার নিয়ম সমূহ

2. অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং: ব্লগিং করার পাশাপাশি আপনি যদি কোন একটি কোম্পানির সাথে কন্টাক্ট করে অথবা তাদের ওয়েবসাইটে জয়েন হয়ে  তাদের প্রোডাক্ট আপনি আপনার ভিজিটরদের কাছে কি করে দিতে পারেন তাহলে সেখান থেকে আপনি যে কমিশন টি পাবেন সেটি হল মূলত অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং  ( Affiliate Marketing )।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং

বর্তমানে বাংলাদেশের অনেক ফ্রিল্যান্সার রয়েছেন যারা শুধুমাত্র গুগল এডসেন্স ব্যতীত এফিলিয়েট মার্কেটিং করে মাসে দুই থেকে তিন লাখ টাকা ইনকাম করেছেন।  তাদের মধ্যে বেশিরভাগই বিশ্বের সবচেয়ে বড় অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট  মার্কেটিং (Amazon Affiliate Marketing) এর সাথে জড়িত।

আরু অন্যান্য: 

Make Website Earn Money | Online income bd payment bKash 2022


তবে আপনি যদি গুগোল অ্যাডসেন্সে পাওয়ার পরে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং ( Affiliate Marketing ) আপনার ওয়েবসাইটে যুক্ত করেন তাহলে আপনার ইনকাম টা হয়তো আরো অনেক দ্বিগুণ হয়ে যাবে যদি আপনার মার্কেটিং সম্পর্কে ভালো ধারনা থাকে।

আরো পড়ুন: এফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করুন ঘরে বসেই

3. স্পনসর্শিপ:  আপনি যখন একটি ওয়েবসাইট তৈরি করবেন এবং নিয়মিত কনটেন্ট পাবলিশ করবেন একপর্যায়ে  আপনার ওয়েবসাইটে মোটামুটি একটি ভালো পজিশনে চলে যাবে এবং আপনার ওয়েবসাইটিতে প্রতিদিন মোটামুটি ভালো ভিজিটর আসবে।

তারপর থেকে আপনাকে বিভিন্ন মানুষ অর্থাৎ বিভিন্ন কোম্পানি থেকে লোকজন আপনার ওয়েবসাইটে তাদের  কোম্পানির এড কোড নির্দিষ্ট সময় ধরে রাখার জন্য রিকুয়েস্ট করবে। তারা কত সাইজের এড  আপনার  ওয়েবসাইটের মধ্যে লাগাবে এবং কতদিন পর্যন্ত রাখবে তার উপর ভিত্তি করে তাড়াতাড়ি সাথে কন্টাক্ট করে আপনি একটি কমিশন গ্রহণ করবেন মূলত সেটি হচ্ছে স্পন্সরশীপ থেকে ইনকাম।

যদি আপনার ওয়েবসাইটে মোটামুটি   ভালো ভিজিটর থাকে তাহলে আপনি   প্রতিমাসে শুধুমাত্র  স্পন্সরশীপ থেকে মোটা অঙ্কের টাকা ইনকাম করতে পারেন। তবে এক্ষেত্রে শুধুমাত্র আপনাকে আপনার ওয়েবসাইটের কনটেন্ট এবং ভিজিটর এর উপর মনোযোগ দিতে হবে।

4. ওয়েবসাইট বিক্রি করে আয়: আপনি যখন আপনার ওয়েবসাইটটি সম্পূর্ণ কাস্টমাইজেশন করবেন তখন আপনি চাইলে  আপনার সম্পূর্ণ ওয়েবসাইট আরেকজনের কাছে বিক্রি করে দিতে পারেন।  তবে এক্ষেত্রে আপনার ওয়েবসাইটে যদি  ভিজিটর না থাকে তাহলে ওয়েবসাইটের মূল্য খুবই কম হবে । আর যদি মোটামুটি ভালো ভিজিটর থাকে তাহলে উচ্চ   দামে আপনি তা অন্যদের কাছে বিক্রি করে দিতে পারবেন  ।

অনেকে আছেন যারা শুধুমাত্র  ওয়েবসাইট বিক্রি করে মোটা অংকের টাকা ইনকাম করে  থাকেন  বলা চলে ওয়েবসাইট বিক্রি খুব ভালো একটি বিজনেস এর পর্যায়ে পড়ে যায়।তাছাড়া ব্লগিং শেখার মাধ্যমে আপনি বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে  এর উপর কাজ করতে পারেন এবং সেখান থেকে একটিভ ইনকাম করতে পারবেন।

আরু পড়ুন: 

Top 5 Apps for Earn Money in 2021 - 2022


উপরোক্ত  মাধ্যমগুলো ছাড়াও আরো নানা উপায়  অবলম্বন  এর মাধ্যমে ব্লগিং করে টাকা আয় করা সম্ভব।আমি আপনাদের সাথে ব্লগিং থেকে আয় করার সবচেয়ে সেরা মাধ্যমগুলো শেয়ার করেছি 
-ধন্যবাদ।

Mobile diye Taka income in 2022 from Bangladesh with 100$ Earning Proof | Payment Bkash

Mobile diye টাকা ইনকাম করা ভিডিও টিউটোরিয়াল সাথে রয়েছে ৫ দিনে ১০০ ডলার আর্নিং করার পেমেন্ট প্রুফ - বিকাশে পেমেন্ট পেয়েছি। 

 100$ ইনকাম প্রুফ:

Mobile diye Taka income 2022 with 100$ Earning Proof | Payment Bkash


Mobile Diye Taka income kora jay, jara Mobile diye Taka income korte chan & Payment Bkash, Nagad, Rocket এর মাধ্যমে নিতে চান তারা ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখে দেখে টাকা আর্নিং করা শিখে নিতে পারেন। 

নিচে ইউটিউব চ্যানেল লিংক দেওয়া হলো: 

Channel Link: BDRong24 Technical 

উক্ত ইউটিউব চ্যানেলে মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম করার যত রিয়েল প্রুফ এবং পদ্ধতি রয়েছে সবই শেয়ার করা আছে। এবং নতুন নতুন ভিডিও টিউটোরিয়াল তৈরি করা হয়। যা দেখে বাংলাদেশের যে কেউ অনলাইনে mobile diye টাকা ইনকাম করতে পারবেন। 

আরু অন্যান্য টপিক গুলোঃ 

Top 8 Bitcoin Earnings Sites in 2022

close